গ্রামীনফোন: মোবাইল টেলিকম কোম্পানি

By MD MOSTOFA Aug 28, 2023

গ্রামীনফোন, বাংলাদেশের একটি বৃহত্তম মোবাইল টেলিকম কোম্পানি। এটি বাংলাদেশের টেলিকম ইন্ডাস্ট্রিতে একটি পরিচিত নাম এবং সেবা প্রদান কারী কোম্পানি।

গ্রামীনফোনের প্রাথমিক উদ্দেশ্য ছিল বাংলাদেশের গ্রামীণ এলাকাগুলির মাধ্যমে মোবাইল সার্ভিস প্রদান করা। গ্রামীনফোনের স্থাপনা 1997 সালে হয়েছিল এবং প্রায় সময় পর পর তাদের সেবা এলাকা বৃদ্ধি করে আসে। গ্রামীনফোন বাংলাদেশে অত্যন্ত ব্যবহৃত একটি মোবাইল নেটওয়ার্ক হয়ে উঠেছে এবং এটি বিভিন্ন প্রযুক্তিগত উন্নতিগুলি সম্পন্ন করেছে, যাতে ব্যবহারকারীদের স্বাগতম সেবা প্রদান করা যায়।

গ্রামীনফোন বিশেষভাবে বাংলাদেশের গ্রামীণ এলাকাগুলিতে মোবাইল সার্ভিস প্রদান করে এবং তাদের নেটওয়ার্ক একটি ব্যবহারকারীর চাহিদাবোধ অনুসারে তাদের সেবা উন্নত করতে চেষ্টা করে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশে বিভিন্ন প্যাকেজ, অফার এবং সেবা প্রদান করে, যেগুলি ব্যবহারকারীদের মোবাইল সংযোগের জন্য উপযুক্ত। এছাড়া, তারা ডাটা প্লান, ভয়েস কলিং, এসএমএস, ইন্টারনেট সেবা, মাল্টিমিডিয়া মেসেজিং, ইন্টারন্যাশনাল রোমিং, অনলাইন চাকরি প্রেসেন্টেশন, মোবাইল ফিন্যান্স সেবা ইত্যাদি সরবরাহ করে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশের মোবাইল টেলিকম সেক্টরে একটি গুরুত্বপূর্ণ নাম এবং দেশের সামাজিক এবং আর্থিক উন্নতির সাথে সংযোগ রেখেছে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশের মোবাইল টেলিকম ইন্ডাস্ট্রিতে একটি পর্যাপ্তভাবে প্রতিষ্ঠিত কোম্পানি। এটি বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় মোবাইল অপারেটর হিসেবে পরিচিত। গ্রামীনফোন একটি সবসময় চেষ্টা করে নতুন এবং আধুনিক প্রযুক্তি এনে মানুষের জীবনকে সহজ করার জন্য আপনার বিভিন্ন সেবা এবং অফার প্রদান করতে।

গ্রামীনফোনের বিভিন্ন অফার ও প্যাকেজ মোবাইল ব্যবহারকারীদের চাহিদা এবং অবস্থানে ভিত্তি করে। তারা মোবাইল ইন্টারনেট ডাটা প্লান, মিনিট প্যাকেজ, এসএমএস অফার, নিরবিচ্ছিন্ন ইন্টারন্যাশনাল কমিউনিকেশন, মোবাইল ফিন্যান্স সেবা, ইউসিএসডি (উচ্চ গতির ইন্টারনেট), মাল্টিমিডিয়া সার্ভিস এবং অন্যান্য সেবা প্রদান করে।

গ্রামীনফোন সামাজিক উন্নতির জন্য বিভিন্ন সামাজিক প্রকল্প এবং সামাজিক দায়িত্বপ্রাপ্ত কাজে সক্রিয় যোগদান করে। তাদের “গ্রামীণফোন নেতৃত্বে নারীবান্ধব” প্রকল্প একটি উল্লেখযোগ্য উদাহরণ, যা মেয়েদের প্রশিক্ষণ, উন্নত মাধ্যম শিক্ষা এবং ব্যবসায়িক প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তাদের আর্থিক স্বায়ত্ততা এবং সামাজিক দক্ষতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।

এই সাথে, গ্রামীনফোন বাংলাদেশের প্রাকৃতিক আপাতকালীন সময়ে সাহায্য প্রদানে সক্ষম হয়েছে, যেগুলি দুর্যোগ, বৃষ্টির প্রতিরোধ এবং সামাজিক সেবা প্রদানে মানুষের পাশে থাকে।

এইসব উল্লিখিত উপাত্তগুলি মতে, গ্রামীনফোন বাংলাদেশে টেলিকম সেক্টরে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এবং দেশের সামাজিক এবং আর্থিক উন্নতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশের অত্যন্ত বিশেষ এবং উল্লেখযোগ্য একটি ইউনিক্যার সেবা হল “গ্রামীনফোন কল বন্ধু” প্রোগ্রাম। এই প্রোগ্রামের মাধ্যমে বাংলাদেশের মানুষেরা নিখোঁজ অবস্থানের সাথে বিদেশে বসে থাকা বন্ধু এবং আত্মীয়-বন্ধুদের সাথে সহজেই যোগাযোগ করতে পারে। এটি নির্দিষ্ট বিনামূল্যে সেবা প্রদান করা হয়, যার মাধ্যমে লাভ প্রাপ্তির সুযোগ প্রদান করা হয়ে থাকে।

গ্রামীনফোন সামাজিক উন্নতির লক্ষ্যে বিভিন্ন প্রকল্প ও গৌরবময় ঘটনায় সক্রিয় যোগদান করে। তাদের “গ্রামীনফোন জাতির প্রশ্নে” নামক একটি প্রোজেক্টে তারা নোবেল পুরস্কার বিজয়ী শিক্ষাবিদদের সাথে মিলিয়ে বাংলাদেশের শিক্ষাবান্ধব কাম্যাবিশেষদের সংলাপ আয়োজন করে।

গ্রামীনফোন একটি মানবিক সামাজিক দায়িত্ব সহযোগিতা প্রদানে সক্ষম এবং তাদের গ্রাহকদের জীবনকে সহানুভূতিপূর্ণ ও উন্নত করার প্রতি আবেগিত। তাদের নতুন প্রযুক্তি এবং সেবা প্রদানের মাধ্যমে, গ্রামীনফোন বাংলাদেশের টেলিকম সেক্টরে নেতৃস্থান অধিকার করে এবং দেশের সামাজিক এবং আর্থিক উন্নতির একটি অমিট অংশ হিসেবে অবিচ্ছিন্ন অবদান রেখেছে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশের মোবাইল টেলিকম সেক্টরে নতুন নতুন প্রযুক্তি এবং পরিবর্তন প্রবর্তনে নিরবিচ্ছিন্ন কাজ করে। তাদের 4G ও 4.5G নেটওয়ার্ক বাংলাদেশে দিয়ে দেয়, যা দ্রুত ইন্টারনেট সংযোগ এবং অনলাইন সেবা উন্নত করে।

গ্রামীনফোন প্রযুক্তিতে নিজস্ব সংগঠন ও তাদের নতুনত্বের মাধ্যমে আপনার অভিজ্ঞতা তৈরি করার চেষ্টা করে। তারা বিভিন্ন প্রযুক্তি প্রদান করে, যাতে ব্যবহারকারীরা একটি উন্নত এবং সুসংগঠিত মোবাইল অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারে।

গ্রামীনফোন একটি সক্ষম সামাজিক দায়িত্ব নেওয়া করে, যা তাদের প্রতিষ্ঠিত সামাজিক প্রকল্প এবং দায়িত্বপ্রাপ্ত কাজের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত হয়ে থাকে। তাদের “গ্রামীনফোন মাধ্যমে প্রশ্ন উত্তর সেবা” একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সেবা, যার মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা প্রশ্ন করতে এবং তাদের জন্য সঠিক সমাধান পেতে পারে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশের সামাজিক এবং আর্থিক উন্নতির একটি অমিট অংশ হিসেবে প্রস্তুত। তাদের নতুন প্রযুক্তি এবং সেবা উন্নতির দিকে এগিয়ে যাওয়ায় তারা বাংলাদেশের বৃদ্ধি এবং উন্নতির পথে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশের মোবাইল টেলিকম উদ্যোগের সাথে সাথে বিশাল একটি সামাজিক পরিবর্তন এবং আর্থিক উন্নতি উত্তরাধিকারী হয়ে গিয়েছে। তাদের উদ্যোগগুলি একটি সমৃদ্ধ বাংলাদেশ নির্মাণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এবং সামাজিক সমৃদ্ধির দিকে অগ্রসর হচ্ছে।

গ্রামীনফোন প্রযুক্তি এবং সেবা প্রদানের মাধ্যমে বাংলাদেশের সামাজিক বেকারত্তি এবং ব্যক্তিগত অবকাশ বৃদ্ধি করার চেষ্টা করে। তারা শিক্ষা, স্বাস্থ্য সেবা, আধুনিক প্রযুক্তি এবং শৃঙ্খলা প্রদানে অগ্রসর হচ্ছে, যাতে বাংলাদেশের লোকেরা আরও উন্নত ও সমৃদ্ধ জীবনযাত্রা অত্যন্ত সহজতর করতে পারে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশের ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রকল্পের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ, যার মাধ্যমে তাদের সেবা এবং প্রযুক্তি আরও দূরগামী এলাকাগুলিতে পৌঁছানো হচ্ছে। এই প্রযুক্তির মাধ্যমে ছাত্র-শিক্ষক এবং ব্যবসায়িক কার্যক্রম প্রভৃতি বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে উন্নত শিক্ষাবিদ্যালয় এবং ব্যবসায়িক স্থাপনার সাথে সাথে সহযোগিতা করে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশে নিজস্ব স্বাস্থ্য সেবা সরবরাহের মাধ্যমে জনগণের জীবনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তাদের অনলাইন ডক্টর সেবা, আপ্তকালিক চিকিৎসা প্রদান এবং স্বাস্থ্য পরামর্শ মাধ্যমে লোকেরা স্বাস্থ্য দেখার জন্য সহজতর উপায় পেতে পারে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশের টেলিকম সেক্টরে তাদের প্রযুক্তি ও সেবা প্রদানের মাধ্যমে দেশের মানুষের জীবনকে সহজ করার লক্ষ্যে সক্ষম হয়ে থাকে। তাদের নেটওয়ার্ক এবং সেবা প্রদানের সাথে সাথে তাদের প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদে

গ্রামীনফোন বাংলাদেশের সাথে বাংলাদেশের ডিজিটাল উন্নতি এবং সামাজিক পরিবর্তনের জন্য সম্পৃক্ত অনেক প্রকল্প এবং উদ্যোগ আছে। একটি উদাহরণ হল “গ্রামীনফোন অনলাইন স্কুল” প্রকল্প, যার মাধ্যমে পাঠশালা ছাত্র-শিক্ষকরা অনলাইনে শিক্ষা এবং শেখা প্রদান করতে পারে।

গ্রামীনফোন একটি প্রযুক্তিগত বিনিময়ের প্ল্যাটফর্ম, “গ্রামীনফোন শপ,” পরিচালনা করে, যা ব্যবহারকারীদের প্রযুক্তি উপকরণ এবং সামগ্রী প্রদান করে, যাতে তারা তাদের প্রযুক্তির নির্ধারিত আবশ্যকতা অনুযায়ী নিত্যদিনের কাজে ব্যবহার করতে পারে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশের গ্রামীণ উন্নতি এবং উদ্যোগ সাথে সাথে সক্ষম হয়ে আসে, তাদের মাধ্যমে লোকেরা মৌলিক সেবা এবং সুযোগ পেতে পারে, যা তাদের জীবনকে উন্নত ও সহজ করতে সাহায্য করে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশের মোবাইল টেলিকম সেক্টরে তাদের নতুন প্রযুক্তি এবং উন্নতির মাধ্যমে বাংলাদেশের সামাজিক ও আর্থিক উন্নতির সাথে সাথে সম্পৃক্ত হয়ে গিয়েছে। তাদের সেবা এবং প্রযুক্তির মাধ্যমে লোকেরা আরও উন্নত এবং সহজ জীবন প্রত্যাশা করতে পারে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশের সামাজিক প্রবর্তন এবং প্রযুক্তির উন্নতির জন্য বিভিন্ন প্রকল্প ও উদ্যোগ নিয়ে আসে। তাদের “গ্রামীনফোন রিচার্জ সেন্টার” প্রোগ্রাম একটি উদাহরণ, যার মাধ্যমে আমদানি এবং বিক্রয়ের সুযোগ তৈরি করে স্থানীয় উদ্যোক্তাদের জন্য।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশ প্রযুক্তির মাধ্যমে শিক্ষার ডিজিটাল রূপান্তর প্রস্তুত করে, যাতে ছাত্র-শিক্ষকরা নতুন পদ্ধতিতে শিক্ষা প্রদান করতে পারে। গ্রামীনফোনের “ডিজিটাল ক্লাসরুম” প্রযুক্তির সাথে মিশে থাকে, যা শিক্ষার প্রক্রিয়াকে ইন্টারঅ্যাক্টিভ এবং আকর্ষণীয় করে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশের সেবা প্রদান এবং প্রযুক্তির উন্নতির মাধ্যমে বাংলাদেশের গ্রামীণ এলাকাগুলির বেকারত্তি এবং আর্থিক উন্নতি উন্নত করে। গ্রামীনফোনের “গ্রামীণফোন আশা” প্রকল্পে তারা গ্রামীণ উন্নতি এবং বেকারত্তি নিয়ে দুর্বল স্বকর্মীদের সাথে সাথে কাজ করে, যাতে তারা সক্ষম এবং আত্মনির্ভর হতে পারে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশের প্রযুক্তি উন্নতি এবং সামাজিক পরিবর্তনে তাদের বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে সক্ষম হয়ে আসে। তাদের প্রযুক্তি ও সেবা প্রদানের মাধ্যমে লোকেরা আরও উন্নত এবং সহজ জীবন প্রাপ্ত করতে সক্ষম হতে পারে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশ নিজস্ব সামাজিক দায়িত্বে সক্ষম এবং সামাজিক উন্নতির জন্য নানা প্রযুক্তি এবং সেবা প্রদান করে। তাদের “গ্রামীনফোন গ্রামীণ উন্নতি ফাউন্ডেশন” প্রকল্পে তারা গ্রামীণ এলাকাগুলির জন্য পরিবর্তন তৈরি করতে কাজ করে, যাতে গণমাধ্যমে সমাজে সুযোগ ও সমমান বৃদ্ধি প্রদান করা যায়।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশ প্রযুক্তির নতুন প্রয়োজনগুলি অনুধাবন করে এবং উন্নতির উদ্যোগে সক্ষম হয়ে গিয়েছে। তাদের “গ্রামীনফোন বাসা সুরক্ষা” প্রোগ্রাম বাসা এবং অবাসিক সহায়তা প্রদানের জন্য তাদের প্রয়োজনীয় প্রয়োজনগুলি উন্নত করে।

গ্রামীনফোন একটি সামাজিক উন্নতির প্রতি আবেগিতা অবদান করে, যা তাদের নিজস্ব সেবা প্রদান ও সামাজিক উন্নতির উদ্যোগগুলির মাধ্যমে সাবান্ধিক লোকদের জীবনযাত্রা সুবিধাজনক করে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশের প্রযুক্তি এবং সেবা প্রদানের মাধ্যমে বাংলাদেশে সামাজিক এবং আর্থিক উন্নতির একটি পরিকল্পনা তৈরি করে, যা আমাদের দেশকে একটি উন্নত এবং সমৃদ্ধ ভবিষ্যতে নেতৃত্ব করতে সাহায্য করে। তাদের নতুন প্রযুক্তি এবং সেবা উন্নতির পথে এগিয়ে যাওয়ায় তারা বাংলাদেশের সামাজিক এবং আর্থিক উন্নতির একটি অমিট অংশ হিসেবে অবিচ্ছিন্ন অবদান রেখেছে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশের প্রযুক্তি এবং সেবা প্রদানের মাধ্যমে সামাজিক উন্নতি ও বেকারত্তির হার কমানোর মাধ্যমে সমাজে গুণাবদ্ধতা এবং সমমান বৃদ্ধি করতে অবদান রেখেছে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশ স্বাস্থ্য সেবা প্রদানের একটি মাধ্যম হিসেবে কাজ করে যাতে মানুষের স্বাস্থ্য সেবা সহজলভ্য ও উন্নত হতে পারে। তাদের মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন “গ্রামীনফোন হেলথকেয়ার” প্রযুক্তি ব্যবহার করে স্বাস্থ্য পরামর্শ এবং সেবা প্রদানের জন্য, যা মানুষের জীবনকে আরও সহজ ও সুবিধাজনক করে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশ প্রযুক্তি এবং সেবা প্রদানের মাধ্যমে মানুষের জীবন সহজ ও সমৃদ্ধ করতে অবদান রেখেছে। তাদের প্রযুক্তির উন্নতি এবং আদর্শ উদাহরণগুলি বাংলাদেশে ডিজিটাল উন্নতি ও সামাজিক পরিবর্তনের দিকে এগিয়ে যাওয়ার মাধ্যমে দেশটির উন্নতির পথে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশ নিজস্ব ক্ষেত্রে উন্নতিসহ দেশের উন্নত সামাজিক পরিবর্তনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তাদের “গ্রামীনফোন এশিয়ান কার্নিভাল” প্রোগ্রাম বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রযুক্তি উন্নতি এবং নবম শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে প্রযুক্তি উন্নতি ও সামাজিক পরিবর্তনের স্বদেশী উদ্যোগের প্ল্যাটফর্ম তৈরি করে।

গ্রামীনফোন প্রযুক্তি এবং সেবা প্রদানের মাধ্যমে স্থানীয় উদ্যোক্তাদের উন্নতি এবং আত্মনির্ভর সহায়তা করে, যাতে তারা নিজেদের আয় বাড়ানো এবং সামাজিক অবস্থান উন্নত করতে পারে। গ্রামীনফোনের “গ্রামীণফোন উদ্যোক্তা” প্রোগ্রাম উদ্যোক্তাদের জন্য সমর্থন এবং মার্কেটিং সেবা প্রদান করে যাতে তারা তাদের ব্যবসার বাড়তি উন্নতির পথে এগিয়ে যাতে স্থানীয় আর্থিক উন্নতি সম্ভব হতে পারে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশ নিজস্ব প্রযুক্তি প্রশিক্ষণ ও উন্নতি প্রদান করে, যা দেশের যুবতিরা নতুন প্রযুক্তির জন্য সাক্ষম হতে সাহায্য করে। তাদের “গ্রামীনফোন ইউথ ফোর প্রযুক্তি” প্রোগ্রাম যুবতিরা প্রযুক্তি শেখা এবং উন্নতি করার জন্য প্রশিক্ষণ ও উদ্যোগ প্রদান করে, যা তাদের আত্মনির্ভরশীল এবং উন্নত করার সাথে সাথে দেশের প্রযুক্তি উন্নতির পথে এগিয়ে যাওয়ায় সাহায্য করে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশ প্রযুক্তি ও সেবা প্রদানের মাধ্যমে সামাজিক এবং আর্থিক উন্নতির দিকে অগ্রসর হতে চলেছে। তাদের অবদান বাংলাদেশের একটি উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশ গড়ে তুলতে বেশি দ্রুতি বাড়াতে সাহায্য করছে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশ একটি উদার সামাজিক প্রতিষ্ঠান যা প্রযুক্তি এবং সেবা প্রদানের মাধ্যমে দেশে সামাজিক ও আর্থিক উন্নতির উদ্যোগে সক্ষম হয়ে আসে। তাদের “গ্রামীনফোন কমিউনিটি ইউনিভার্সিটি” প্রোগ্রাম সামাজিক পরিবর্তনে শিক্ষার্থীদের জন্য উচ্চশিক্ষা সামগ্রী প্রদান করে যাতে তারা নতুন প্রযুক্তি উন্নতি ও আর্থিক উন্নতির দিকে এগিয়ে যাতে দেশটি উন্নত হতে সাহায্য করতে পারে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশ স্বাস্থ্য সেবা প্রদানের একটি উদাহরণ হিসেবে প্রযুক্তি ব্যবহার করে, যাতে দেশের মানুষেরা স্বাস্থ্য সেবা প্রাপ্ত করতে সাহায্য পেতে পারে। তাদের “গ্রামীনফোন স্বাস্থ্যসেবা” প্রোগ্রাম একটি ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম তৈরি করে, যার মাধ্যমে স্বাস্থ্য পরামর্শ এবং সেবা প্রদান করা হয়, যা মানুষের স্বাস্থ্য সেবা সহজলভ্য করে তুলতে সাহায্য করে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশ নিজস্ব উদ্যোগের মাধ্যমে দেশের বেকারত্তি হার কমানো এবং সামাজিক উন্নতির উদ্যোগ গ্রহণ করে। তাদের “গ্রামীনফোন আশা” প্রোগ্রাম একটি উন্নতির প্রতিষ্ঠানগুলির জন্য কাজ প্রদান করে যাতে তাদের নিজস্ব আয় বাড়ানো এবং আর্থিক উন্নতি সাধ্য হতে পারে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশ প্রযুক্তি এবং সেবা প্রদানের মাধ্যমে দেশে সামাজিক এবং আর্থিক উন্নতির দিকে গতি দেয়। তাদের উন্নতির প্রয়োজনগুলি পূরণের জন্য তাদের প্রয়োজনীয় প্রয়োজনগুলি বাংলাদেশের একটি উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশ গড়ে তুলতে সাহায্য করে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশ একটি অগ্রণী সামাজিক উন্নতির উদ্যোগ যা প্রযুক্তি এবং সেবা প্রদানের মাধ্যমে সামাজিক এবং আর্থিক উন্নতির পথে এগিয়ে যাচ্ছে। তাদের “গ্রামীনফোন অ্যাপ্লিকেশন স্টোর” প্রোগ্রাম ডিজিটাল সেবা এবং প্রযুক্তির মাধ্যমে সামাজিক পরিবর্তন এবং উন্নতি প্রকল্পগুলির অ্যাক্সেস প্রদান করে, যা দেশের লোকেরা সহজেই ব্যবহার করতে পারে এবং তাদের জীবনকে সহজ করে।

গ্রামীনফোন বাংলাদেশ নিজস্ব প্রযুক্তি ও সেবা প্রদানের মাধ্যমে নারীরা এবং সমাজের দুর্বল বর্গগুলির জন্য সামাজিক উন্নতি তৈরি করে।

By MD MOSTOFA

Permanent address:- vill: Ballavbishu, Post: Bhutchhara, Upazilla: kaunia, District: Rangpur

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *